Wednesday, December 29, 2010

কমলালেবু খাচ্ছে হাতি!

বন্য প্রাণী হাতি গাছপালা ও লতাগুল্ম খেয়ে বেঁচে থাকে—এটাই এতদিন সবার জানা ছিল। কিন্তু ভুটানের বন্য হাতিরা সম্প্রতি কমলা খাওয়া শুরু করেছে। এ ধরনের ঘটনা এটাই প্রথম। এতে দেশটির কমলালেবুর চাষিরা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন বন্য প্রাণী ও উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তারাও।
ভুটানের প্রধান ইংরেজি দৈনিক কুয়েনসেল জানিয়েছে, দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের কমলালেবুর বাগানগুলোতে হাতির পালের আক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। হাতির দল বাগানে ঢুকে কমলালেবু খেয়েছে। নষ্ট করে ফেলেছে বিপুল পরিমাণ ফল।
গ্রামবাসী বলেন, হাতির গোগ্রাসে কমলালেবু খাওয়া দেখে তাঁরা চমকে গেছেন, শঙ্কিতও হয়ে পড়েছেন। এমনটি এর আগে কখনো ঘটেনি। তাঁরা বলেন, হাতির দল এভাবে কমলালেবু খেলে বাগান সাবাড় হয়ে যাবে। তাঁদের ব্যবসাও লাটে উঠে যাবে।

বিশেষজ্ঞরা জানান, ভুটানে হাতিরা দিনে সাধারণত ১৪৯ থেকে ১৬৯ কেজি খাবার খেয়ে থাকে। এর মধ্যে রয়েছে ঘাস, ছোট চারা, গুল্ম, ডালপালা ও গাছের বাকল।
ভুটানের কমলালেবু রপ্তানিকারক নাগরিক পুষ্প অধিকারী বলেছেন, ‘এমনটি আগে কখনো ঘটেনি। এ ঘটনায় আমরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছি। আমাদের আয়-রোজগারের অন্যতম প্রধান উৎস হলো কমলালেবুর চাষ। হাতিরা কমলালেবু খাওয়া শুরু করাতে আমাদের জন্য এটা বড় ধরনের হুমকি।’
গ্রামবাসী ধারণা করছেন, জঙ্গলে খাবার-দাবারের সংকট দেখা দেওয়ায় হাতিরা বাধ্য হয়ে কমলালেবু খেতে ঢুকে পড়ছে। তাঁরা বলেন, এখন অন্য ফলের খেতে হাতি ঢুকে পড়াটাও সময়ের ব্যাপার। এতে যে কেবল ফসল নষ্ট হবে তা-ই নয়, গাছপালাও ধ্বংস হয়ে যাবে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, হাতির আক্রমণে এরই মধ্যে দুটি কমলালেবুর বাগান ধ্বংস হয়ে গেছে। এ দুটি বাগানের ফল চারদিকে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে।
পরিবেশ সংরক্ষণবিষয়ক আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংগঠন ওয়ার্ল্ড ফান্ড ফর নেচার (ডব্লিউডব্লিউএফ) বলেছে, ভুটানের দক্ষিণাঞ্চলে সম্প্রতি হাতি ও মানুষের মধ্যে বেশ কয়েকটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ রকম ঘটনা নিত্যনৈমিত্তিক বিষয়ে পরিণত হয়েছে। ২০০৭ সালে বন্য হাতির দল দেশটির প্রায় ১৩২ একর (৫৩ হেক্টর) জমির ফসল নষ্ট করেছে।
সংস্থাটি আরও বলেছে, বন্য প্রাণীদের এক জঙ্গল থেকে আরেক জঙ্গলে যাতায়াতের পথ মানব সভ্যতার নগরায়ণ ও শিল্পায়নের কারণে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ কারণেও বন্য প্রাণীর আচরণে পরিবর্তন এসেছে। বিবিসি।

No comments:

Post a Comment